Model Activity Task Class 4 Bengali Part 2 Combined Answers February 2022 | চতুর্থ শ্রেণীর বাংলা মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক পার্ট ২

Model Activity Task Class 4 Bengali Part 2 Combined Answers February 2022 | চতুর্থ শ্রেণীর বাংলা মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক পার্ট ২

Model Activity Task Class 4 Bengali Part 2 Combined Answers February 2022: আপনি যদি একজন চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র হন তবে আজকের নিবন্ধটি আপনার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে কারণ আজকে আমরা এই পোস্টে বিনামূল্যে চতুর্থ শ্রেণীর বাংলা মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক পার্ট ২ নিয়ে এসেছি আপনি এই পোস্ট থেকে Model Activity Task Class 4 Bengali Part 2 Combined Answers এবং বিভিন্ন অধ্যয়ন সামগ্রী দেখতে এবং পড়তে পারবেন।

আপনি যদি চতুর্থ শ্রেণীর বাংলা মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক পার্ট ২ -এর প্রশ্ন এবং উত্তর দেখতে এবং পড়তে চান তাহলে নিচের দিকে Scroll Down করুন। যা আপনার পথে আসা সব ধরনের প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় কাজে লাগবে এবং যদি আপনি এই পৃষ্ঠাটি দরকারী বলে মনে করেন তবে এটি ফেসবুক, টুইটার ইত্যাদির মতো সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

Model Activity Task Class 4 Bengali Part 2 Combined Answers February 2022 | চতুর্থ শ্রেণীর বাংলা মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক পার্ট ২

Model Activity Task Class 4 Bengali Part 2 Overview

নীচে আপনি চতুর্থ শ্রেণীর বাংলা মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক পার্ট ২ -এর সম্পর্কে কিছু প্রাথমিক তথ্য পাবেন। চতুর্থ শ্রেণীর বাংলা মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক পার্ট ২ -এর অতিরিক্ত বিবরণের জন্য, নীচের টেবিলটি দেখুন।

Class4
SubjectBengali
CategoryActivity Task Cass 4 Part 2 Bengali
Official Websitehttps://govtjobcenter.in
Join Telegram GroupClick Here
Watch On YouTubeClick Here

Model Activity Task Part 2, February 2022

বাংলা (Bengali)

চতুর্থ শ্রেণী (Class 4th)
পূর্ণমান – ১৫

Class 4 Bengali Model Activity Task Part 2 February 2022 Solution

১. ঠিক উত্তরটি বেছে নিয়ে লেখাে :  ১x৩=৩ 

১.১ বনের ধারে আছে মস্ত – 

(ক) নদী

(খ) পাহাড় 

(গ) মাঠ

(ঘ) গর্ত

উত্তর: (খ) পাহাড়

১.২ ছাগলছানার দেখা প্রথম বড়ড়া জন্তুটি হলাে— 

(ক) ভালুক

(খ) বাঘ 

(গ) সিংহ

(ঘ) ষাঁড় 

উত্তর: (ঘ) ষাঁড়

১.৩ শিয়াল রাক্ষস ভেবেছে— 

(ক) বাঘকে

(খ) ছাগলছানাকে 

(গ) ষাঁড়কে

(ঘ) ভালুককে 

উত্তর: (খ) ছাগলছানাকে

Class 4 Bengali Model Activity Task Part 2 February 2022 Solution

২. নীচের প্রশ্নগুলির একটি বাক্যে উত্তর দাও :  ১x৩=৩

২.১ ছাগলছানা কোথায় থাকত ? 

উত্তর: যেখানে মাঠের পাশে বন আছে আর বনের ধারে মস্ত পাহাড় আছে সেই খানে একটা গর্তের ভিতরে ছাগলছানা থাকতো ।

২.২ গর্তের বাইরে যেতে চাইলে ছাগলছানার মা তাকে কী বলত? 

উত্তর: গর্তের বাইরে যেতে চাইলে ছাগল ছানার মাতা কে বলতো “যাসনে ! ভালুকে ধরবে, বাঘে নিয়ে যাবে, সিংহে খেয়ে খেয়ে ফেলবে”

২.৩ ‘তুমি যাও, আমি কাল যাব।’ – ছাগলছানা কেন একথা বলেছিল? 

উত্তর: বনের ভিতর চমৎকার ঘাস খেয়ে ছাগল ছানার পেট এমন ভারি হয়ে পড়েছিল যে, সে আর চলতে পারছিল না তাই সে প্রশ্নে উদ্বৃত কথাটি বলেছিল ।

Class 4 Bengali Model Activity Task Part 2 February 2022 Solution

নীচের প্রশ্নগুলির সংক্ষিপ্ত উত্তর দাও :  ২x৩=৬

৩.১ গর্তের ভিতর কে ও?’ – এই প্রশ্নের উত্তরে ছাগলছানা কী বলেছিল? 

উত্তর: গর্তের ভেতর কে ও — এই প্রশ্নের উত্তরে ছাগলছানা বলেছিল –

“লম্বা লম্বা দাড়ি

ঘন ঘন নারী ।

সিংহের মামা আমি নরহরি দাস

পঞ্চাশ বাঘে মোর এক-এক গ্রাস ! “

৩,২ ‘শুনেই তাে ভয়ে বাঘের প্রাণ উড়ে গিয়েছে।’ – বাঘ ভয় পেয়েছে কেন?

উত্তর: বাঘ শিয়াল কে লেজের সঙ্গে বেঁধে শিয়ালের গর্তের কাছে এলে ছাগলছানা দূর থেকে তাদের দেখতে পায় । তাদের দেখে ছাগলছানা বুদ্ধি করে শিয়ালকে বলে – 

“দূর হতভাগা তোকে দিলাম দশ বাঘের কড়ি

এক বাঘ নিয়ে এলি লেজে দিয়ে দড়ি ! “

এই কথা শুনে বাঘ ভয় পেয়ে যায় । কারণ সে ভেবেছিল শিয়াল থাকে ফাঁকি দিয়ে নরহরি দাসকে খেতে দেওয়ার জন্যই তাকে নিয়ে এসেছে ।

৩.৩ বাঘের উপর শিয়ালের রাগ হয়েছিল কেন? 

উত্তর: নরহরি দাসের (ছাগলছানার) কথা শুনে ভয়ে বাঘের প্রাণ উড়ে গিয়েছিল । ফলে সে পঁচিশ হাত লম্বা এক লাফ দিয়ে তার লেজে বাধা শিয়াল কে নিয়ে দৌড়াতে থাকে । সেই কারণে শিয়াল মাটিতে আছাড় খেয়ে, কাটার আঁচড় খেয়ে, ক্ষেতের আলে ঠোক্কর খেয়ে প্রায় আধমরা হয়ে পড়েছিল । বাঘ মামার এই ব্যবহারের ফলে শেয়ালের যায় যায় অবস্থা হয়ে গিয়েছিল বলেই বাঘের উপর রাগ হয়েছিল ।

Class 4 Bengali Model Activity Task Part 2 February 2022 Solution

৪. নীচের প্রশ্নটির উত্তর নিজের ভাষায় লেখাে :

নরহরি দাস’ গল্পে ছাগলছানার বুদ্ধির পরিচয় কীভাবে ফুটে উঠেছে?

উত্তর: উপেন্দ্রকিশোর রায়চৌধুরীর লেখা “নরহরি দাস” গল্পে দেখা যায় বনের ভিতর বেশি পরিমাণে ঘাস খেয়ে ছাগলছানা টি আর চলতে না পারায় একটি শিয়ালের গর্তে আশ্রয় নেয় । গর্তের ভিতর থেকে সে শিয়াল কে দেখেও ভয় না পেয়ে নিজেকে সিংহের মামা নরহরি দাস বলে পরিচয় দেয় । কোন চেনা জন্তুর নাম উচ্চারণ করলে শিয়াল তার মিথ্যা ধরে ফেলত । তাই সে নরহরি দাস এর নাম নিয়ে শিয়ালের মনে আতঙ্ক তৈরি করেছিল। সেই সঙ্গে সে এক গ্রাসে পঞ্চাশটা বাঘ খেতে পারে বলে শিয়ালের ভয় আরো বাড়িয়ে দিয়েছিল । এইভাবে বাঘের সামনে সে শিয়াল কে উদ্দেশ্য করে বলে যে তাকে দশ বাঘের কড়ি দিলেও সে মাত্র একটি বাঘ নিয়ে এসেছে । এই কথায় বাঘ ভয় পেয়ে পালায় । এইভাবে ছাগল ছানার বুদ্ধির পরিচয় ফুটে উঠেছে গল্পে ।

Class 4 Bengali Model Activity Task Part 2 February 2022 Solution

১ ) ঠিক উত্তরটি বেছে নিয়ে লেখো ।

১.১ ) বনের ধারে আছে মস্ত –

উঃ – খ ) পাহাড় ।

১.২ ) ছাগল ছানার দেখা প্রথম বড় জন্তুটি হলো –

উঃ – ঘ ) ষাঁড় ।

১.৩ ) শিয়াল ও রাক্ষস ভেবেছে –

উঃ – খ ) ছাগলছানাকে ।

২ ) নিচের প্রশ্নগুলির একটি বাক্যে উত্তর দাও ।

২.১ ) ছাগলছানা কোথায় থাকতো ?

উঃ – যেখানে মাঠের পাশে বন আছে আর বনের ধারে মস্ত পাহাড় আছে, সেই খানের একটা গর্তের ভিতরে ছাগলছানা থাকতো।

২.২ ) গর্তের বাইরে যেতে চাইলে ছাগল ছানার মা তাকে কি বলতো ?

উঃ – গর্তের বাইরে যেতে চাইলে ছাগল ছানার মা তাকে বলতো ‘ যাসনে ! ভালুকে ধরবে, বাঘে নিয়ে যাবে, সিংহে খেয়ে ফেলবে ।

২.৩ ) ‘ তুমি যাও আমি কাল যাব । ‘ – ছাগলছানা কেন এ কথা বলেছিল ?

উঃ – বনের ভেতর চমৎকার ঘাস খেয়ে ছাগল ছানার পেট এমন ভারি হয়ে পড়েছিল যে, সে আর চলতে পারছিল না । তাই সে প্রশ্নে উদ্ধৃত কথাটি বলেছিল ।

৩ ) নিচের প্রশ্নগুলির সংক্ষিপ্ত উত্তর দাও ।

৩.১ ) গর্তের ভিতর কে ও ? – এই প্রশ্নের উত্তরে ছাগলছানা কি বলেছিল ?

উঃ – এই প্রশ্নের উত্তরে ছাগলছানা বলেছিল –
লম্বা লম্বা দাড়ি
ঘন ঘন নাড়ি
সিংহের মামা আমি নরহরি দাস
পঞ্চাশ বাঘে মোর এক এক গ্রাস !

৩.২ ) ‘ শুনেই তো ভয়ে বাঘের প্রাণ উড়ে গিয়েছে ।’ – বাঘ ভয় পেয়েছে কেন ?

উঃ – বাঘ শিয়ালকে লেজের সঙ্গে বেঁধে শিয়ালের গর্তের কাছে এলে ছাগলছানা দূর থেকে তাদের দেখতে পায় । তাদের দেখে ছাগলছানা বুদ্ধি করে শিয়ালকে বলে –

” দূর হতভাগা তোকে দিলুম দশভাগের কড়ি  এক বাঘ নিয়ে এলি লেজে দিয়ে দড়ি !”
এই কথা শুনে বাঘ ভয় পেয়ে যায় । কারণ সে ভেবেছিল শিয়াল তাকে ফাঁকি দিয়ে নরহরি দাসকে খেতে দেওয়ার জন্যই তাকে নিয়ে এসেছে ।

৩.৩ ) বাঘের উপর শিয়ালের রাগ হয়েছিল কেন ?

উঃ – নরহরি দাসের ( ছাগল ছানার ) কথা শুনে ভয়ে বাঘের প্রাণ উড়ে গিয়েছিল । ফলে সে পঁচিশ হাত লম্বা এক এক লাফ দিয়ে তার লেজে বাধা শিয়ালকে নিয়ে দৌড়াতে থাকে । সেই কারণে শিয়াল মাটিতে আছাড় খেয়ে, কাঁটার আঁচড় খেয়ে, ক্ষেতের আলে ঠোক্কর খেয়ে প্রায় আধ মরা হয়ে পড়েছিল । বাঘ মামার এই ব্যবহারের ফলে শিয়ালের যায় যায় অবস্থা হয়ে গিয়েছিল বলেই বাঘের উপর শিয়ালের রাগ হয়েছিল।

৪ ) নিচের প্রশ্নটির উত্তর নিজের ভাষায় লেখ ।

প্রশ্ন – নরহরি দাস গল্পে ছাগলছানার বুদ্ধির পরিচয় কিভাবে ফুটে উঠেছে ?

উত্তর – উপেন্দ্রকিশোর রায়চৌধুরীর লেখা নরহরি দাস গল্পে দেখা যায় বনের ভিতর বেশি পরিমাণে ঘাস খেয়ে ছাগলছানাটি আর চলতে না পারায় একটি শিয়ালের গর্তে আশ্রয় নেয় । গর্তের ভিতর থেকে সে শিয়ালকে দেখেও ভয় না পেয়ে নিজেকে সিংহের মামা নরহরি দাস বলে পরিচয় দেয় । কোনো চেনা জন্তুর নাম উচ্চারণ করলে শিয়াল তার মিথ্যা ধরে ফেলত । তাই সে নরহরি দাসের নাম নিয়ে শিয়ালের মনে আতঙ্ক তৈরি করেছিল । সেই সঙ্গে এক গ্রাসে পঞ্চাশটা বাঘ খেতে পারে বলে শিয়ালের ভয় আরো বাড়িয়ে দিয়েছিল । একইভাবে বাঘের সামনে এসে শিয়ালকে উদ্দেশ্য করে বলে যে তাকে দশ ভাগের কড়ি দিলেও সে মাত্র একটি বাঘ নিয়ে এসেছে । এই কথায় বাঘও ভয় পেয়ে পালায় । এইভাবে ছাগল ছানার বুদ্ধির পরিচয় ফুটে উঠেছে নরহরি দাস গল্পে।

সুতরাং বিবর্তিত বিশ্বে গণেশ অসাধারণ এক শিল্পীত চরিত্র। আমার মতে তিনি প্রকৃত অর্থে মানবতারই পৃষ্ঠপােষক।

SEE THIS –

আপনি যদি এই সামগ্রীটি পছন্দ করেন তবে এটি আপনার বন্ধুদের সাথে Facebook এবং WhatsApp-এ শেয়ার করুন৷

আমি আশা করি আপনি এই নিবন্ধে চতুর্থ শ্রেণীর বাংলা মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক পার্ট ২ -এর প্রশ্ন এবং উত্তর সম্পর্কে সম্পূর্ণ তথ্য পেয়েছেন। আপনি যদি চতুর্থ শ্রেণীর বাংলা মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক পার্ট ২ -এর প্রশ্ন এবং উত্তর সম্পর্কিত আরও কিছু প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করতে চান তবে আপনি মন্তব্য করে জিজ্ঞাসা করতে পারেন। এখানে আমাদের দলের সদস্য যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আপনাকে উত্তর দেবে। সমস্ত চতুর্থ শ্রেণীর বাংলা মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক পার্ট ২ সম্পর্কে আরও তথ্যের জন্য আমাদের ওয়েব পৃষ্ঠা GovtJobCenter.In দেখুন।

Leave a Comment